Breaking News
Home / Cricket / সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের অধিনায়ক এবং সাকিব ফ্যানদের কাণ্ড

সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের অধিনায়ক এবং সাকিব ফ্যানদের কাণ্ড

আইপিএলের দল সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের পেজে পোস্টে কমেন্ট পড়ে সাধারণত ৪০-৫০ টা। কিন্তু গতকাল ওদের করা তিনটা পোস্টের দুইটাতে প্রায় ৪০০ কমেন্ট এবং অন্যটাতে ৩০০ কমেন্ট দেখলাম। এই বাড়তি কমেন্টের সিংহভাগই বাংলাদেশের, বলতে সাকিব ফ্যানদের। বিশেষ করে সাকিবের অন্ধ ফ্যানদের। এছাড়া উল্লেখযোগ্য পরিমাণ কমেন্ট আফগানীদের। আফগানীদের মধ্যে নাবী এবং রাশিদ খানের ফ্যানদের। আর কিছু কমেন্ট ভারতীয়দের। নিউজিল্যান্ডীয় কাহারো কমেন্ট দেখছি কিনা তা স্পষ্ট মনে করতে পারছিনা।







২৭ মার্চের পোস্ট গুলোর ক্যাপশন ছিলো –







১/তাদের জার্সি নিয়ে★Support the #OrangeArmy by wearing the Jersey!!
Buy now! Visit www.sunrisershyderabad.in







২/ Start applying for leaves 😋🗓
#OrangeArmy
#LiveOrange







৩/ Tag that friend who ends up tagging you in the same meme that you have tagged him/her 🙂 Share your favourite SRH memes in the comments below.
#LiveOrange







তার আগের দিন (২৬ মার্চ) করা পোস্ট গুলির মধ্যে একটাতে ২২০+ এবং অন্যটাতে প্রায় ৩৫০ কমেন্ট পড়েছে।

পোস্ট দুইটি ছিলো –







৪/ With only a fortnight to go for SRH’s first game in #IPL2018, the adrenal is rushing through the #OrangeArmy. Buy your tickets now and paint the Rajiv Gandhi International Stadium Orange! Visit www.sunrisershyderabad.in
#OrangeArmy







৫/★-★-★-★-★
এই পোস্টে স্কোয়াডের পিক। কোনো ক্যাপশন নেই।

উল্লেখিত পাঁচটি পোস্ট পড়ে নিশ্চয় বুঝতে পারছেন এগুলোতে অধিনায়ক নির্বাচন নিয়ে কোনোধরনের ইংগিত নেই।







অথচ কমেন্ট বক্সে বেশিরভাগ কমেন্ট সাকিবকে অধিনায়ক চাই।
Sakib is best choice for SRH Captaincy
Shakib is best, He is the captin of SRH
No.1 all rounder in all formats, so he is a best captain.

এছাড়া সাকিবের নানা পিক, নানা তথ্য এডিট করে পিক বানিয়ে কমেন্ট তো আছে। কেউ কেউ আবার বাংলাতেও কমেন্ট করছে। তারা ভুলে গেছিলো ওইটা কলকাতার পেজ না, এইটাতে বাংলাতে কমেন্ট করলে হায়দ্রাবাদবাসী বুঝবেনা, কিন্তু আবেগে বাংলাতেই কমেন্ট করছে।







তারসাথে নাবী / রাশিদকে অধিনায়ক চাই কমেন্টও অনেক রয়েছে। তবে সেগুলোতে অযথা হাবিজাবি যুক্তি কম। কিন্তু সাকিবের অন্ধ ফ্যান্সের হাবিজাবি যুক্তি দেখে বাংলাদেশি হিসেবে খুবই অবাক এবং হতাশ হলাম। বিপরীতে ভারতীয়দের অনেক যুক্তিতে নিজে পাল্টা যুক্তি দেয়ার জায়গা পাচ্ছিলাম না। এছাড়া বাংলাদেশী অন্ধ সাকিব ফ্যানদের অপমান এবং বাংলাদেশকে নিয়ে ভারতীয়দের ট্রল তো আছেই। অনেক অন্ধ সাকিব ফ্যান্স ভারতীয়দেরকে গালি দিয়ে বলতো, রেন্ডিয়ানরা সাকিবকে অধিনায়কত্ব দিবেনা, কারণ সাকিব বাংলাদেশী। এর ফলে ওরাও ভিখারির দেশ বলে গালি দিচ্ছিল। সাকিবের বিপরীতে নানা যুক্তি তুলে সাকিবকে ছোটো করছিল।







আফগানী ক্রিকেটার আইপিএলে খেলেছে ২ সিজন। তাদের উচ্ছাস, চিল্লাচিল্লি একটু বেশিই থাকতে পারে তাছাড়া ক্রিকেটে তাদের বয়স খুব বেশি নয়। তাই তাদের ম্যাচুরিটি কম থাকতে পারে।

কিন্তু সাকিব আইপিএলে খেলছে সাত/আট সিজন। তাছাড়া ক্রিকেটে আফগানের চেয়ে বাংলাদেশের বয়য় বেশী। নাবী ফ্যান্সের চেয়ে সাকিব ফ্যান্সের আইপিএল দেখার বয়সও। অথচ আফগানীরা যেই পরিমাণ বাজে যুক্তি এবং দিছে তার চেয়ে বেশ এগিয়ে ছিলো অন্ধ সাকিব ফ্যান্স। এত বেশি পরিমাণ আজেবাজে যুক্তি এবং আবেগ দেখাইছে যে, কমেন্ট বক্সে চোখে না দেখলে বিশ্বাস করা যায়না।







এছাড়া ক্রিকবাজের ভোটের ফলাফলও অনেকে কমেন্ট করেছে। এতটুকু ক্রিকেট জ্ঞান নেই যে, ওয়েবসাইটের ভিউ বাড়াতে এই আয়োজন করেছে ক্রিকবাজ ডট কম।

এ ধরনের ভোটাভুটিতে যার ফ্যান বেশি তার পক্ষেই কমেন্ট বেশ কমেন্ট পড়বে স্বাভাবিক। ক্রিকবাজ ওয়েবসাইট উপমহাদেশে অনেক জনপ্রিয়।







ভোটাভোটিতে একজন ক্যারিবিয়ান, একজন নিউজিল্যান্ডীয়, একজন আফগানী, অন্যজন বাংলাদেশী। নিউজিল্যান্ডে ক্রিকেট জনপ্রিয় নয়, এছাড়া ওরা ক্রিকেট নিয়ে আমাদের মতো ফেসবুকে & অনলাইনে পড়ে থাকেনা, তাই উইলিমায়মসনের ভোট কম। তার চেয়ে রাশিদের ভোটও বেশি। বাংলাদেশীদের কল্যানে সাকিবের ভোট বেশি ন
কিন্তু এই ভোটাটাভোটির আয়োজন তো হায়দ্রাবাদ টিম ম্যানেজমেন্ট করেনি। কি লাভ হবে এই ফলাফলে উচ্চাশা দেখিয়ে ?







ক্রিকেট নিয়ে সারাদিন পড়ে থাকে অনেক বাংলাদেশী। এরমধ্যে সাকিব ফ্যান্সও রয়েছে। এরা এই ছোটো ব্যাপারটা বুঝেনা যে, অধিনায়কত্ব নির্বাচন কোনো ওয়েবসাইটে ভোটাভুটি দিয়ে হয়না, পেজের ভোটাভুটি দিয়ে হয়না। টিম ম্যানেজম্যান্ট যাকে যোগ্য মনে করে তাকেই অধিনায়ক নির্বাচক করবে । তাছাড়া তাদের নিয়মিত অধিনায়ক অস্ট্রেলিয়ান ডেভিড ওয়ার্নারকে তখনো বিদেশী লিগ খেলতে নিষিদ্ধ করেনি ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ), করেছে আজকে বিকালে।

সাকিবের পারফর্মেন্স অতটা ভালো নয় যে, প্রতি ম্যাচে একাদশে থাকা প্রায় নিশ্চিত। এছাড়া জাতীয় দলের হয়ে টি২০ অধিনায়কত্ব রেকর্ড তেমন ভালো নয়।







মাঝেমধ্যে হায়দ্রাবাদের অধিনায়কত্ব করা, নিদাহাস ট্রফিরে ভারতের সহ অধিনায়ক থাকা শিখর ধাওয়ান, ঘরোয়া ক্রিকেটে অধিনায়কত্ব করা মানিশ পান্ডে, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সফল নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন, বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন দল উইন্ডিজের অধিনায়ক কার্লোস ব্রাথওয়েইট রয়েছেন হায়দ্রাবাদ স্কোয়াডে। যারা সবাই অধিনায়ক হওয়ার দৌড়ে সাকিবের এগিয়ে আছে। সেখানে সাকিব এবং নাবীর সম্ভাবনা ওদের চেয়ে কমই মনে হচ্ছে।







এরপরেও সাকিব অধিনায়কত্ব দিলে বাংলাদেশী হিসেবে আমরা খুশী হবো। কিন্তু অন্যান্য পোস্টের কমেন্টে অগ্রিম চিল্লাচিল্লি করে ইম্যাচুরিটি দেখানোর কি দরকার ?

বাংলাদেশের অনেক নামে বেনামে হাবিজাবি অনলাইন পোর্টালতো ‘অধিনায়ক হচ্ছেন সাকিব’ বেশ নিউজ দিয়েছে।







নানা পেজে & গ্রুপে অনেক পোস্ট এবং কমেন্ট হয়েছে। অনেক গ্রুপে নাকি ভোটাভুটির পুল খোলা হয়েছে। কতটা ইম্যাচুরিটি এবং অতিরিক্ত আবেগী হলে অন্ধ সাকিব ফ্যান্স এরকম করতে পারে। আচ্ছা, বাংলাদেশের কিছু ফেসবুক গ্রুপের ভোটাভুটি দিয়ে কি হায়দ্রাবাদ তাদের অধিনায়ক নির্বাচন করবে ? এতটুকু কমন ক্রিকেট সেন্সও নেই ?

আমরা সারাদিন চিল্লাচিল্লি করি, আইপিএল দেখবো না, ভারতীয় ক্রিকেট সাপোর্ট করবোনা। অথচ আমরাই আবার চিল্লাচিল্লি করি, বাংলাদেশের অধিনায়ককে আইপিএল দলের অধিনায়কত্ব দেয়া হোক। বিপরীত স্ট্যান্ডার্ড হয়ে গেলো না ? এক মুখে দুই ধরনের কথা হয়ে গেলো না ?







এমনিতেই ভারতীয়রা আমাদেরকে নিয়ে ট্রল করে, গতকাল যা করেছে তা কেবল শুরু, আইপিএল খেলা শুরু হলে যদি সাকিব ভালো পারফরমেন্স না করে তাহলে সাকিব সহ বাংলাদেশকে নিয়ে যে কিরকম ট্রল করবে তা অনুমেয়।

যেই সাকিবের জন্য বিদেশি লিগের দলগুলোর পেজে ঢুকতাম, নানা কমেন্ট করতাম, বিদেশীদের থেকে ইতিবাচক রিপ্লাই পেতাম। এখন সেই সাকিবের অন্ধ ফ্যানদের জন্য বিদেশী দলের পেজে ঢুকা যাবেনা, ঢুকে কমেন্ট করলে নেতিবাচক & ট্রল রিপ্লাই পাওয়ার আশংকা তৈরি হয়েছে।







যেখানে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ অধিনায়ক নির্বাচন নিয়ে ভোটাভুটির পুল আয়োজন করেনি, সেখানে সাকিবের অন্ধ ফ্যান্সদের এহেন কর্মকাণ্ড অন্যদের বিরক্ত করে সাকিবের হেটার তৈরি করছে এবং প্রকৃত সাকিবিয়ানদেরকে দেশের বাহিরে ট্রলের পাত্র করছে । এছাড়া সাকিব এবং বাংলাদেশকে নিয়েও ট্রল করার সুযোগ করে দিচ্ছে বিদেশীদেরকে।

আজকে ওয়ার্নার পদত্যাগ করার হায়দ্রাবাদের স্ট্যাটাস ছিল – “In light of recent events, David Warner has stepped down as captain of SunRisers Hyderabad. The new captain of the Team will be announced shortly.” – K.Shanmugam, CEO, SunRisers Hyderabad

পেজের কমেন্ট এবং রিপ্লাইয়ের কিছু স্ক্রিনশট দেখলেই বুঝতে পারবেন,

 
এই কয়েকটা স্ক্রিনশট তো নমুনা, এমন হাজারো কমেন্ট রয়েছে সাকিব ফ্যানদের !

অনেকের কমেন্ট রিপ্লাইয়ে জবাবে ভারতীয়দের কমেন্ট রিপ্লাই দেখুনতো ! এত ইম্যাচুরড কেন সাকিবের অন্ধ ফ্যান্স ? কেন সাকিবকে ছোটো করছে তারা ? কেন নিজেদেরকে এবং বাংলাদেশকে গালি খাওয়াচ্ছে ? কেন সাকিব, ফ্যান্স, বাংলাদেশকে নিয়ে ভারতীয়দেরকে ট্রল করার সুযোগ দিচ্ছে ?

Check Also

সুখবরঃ বিসিবির নতুন নিয়মে সুযোগ পাচ্ছেন তারা, তালিকার শীর্ষে আছেন আশরাফুল। ২য় শাহরিয়ার নাফিস। পড়ুন বিস্তারিত

ফ্র্যাঞ্চাইজি ভিত্তিক বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং গুরুত্বপূর্ণ টুর্নামেন্ট বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ বিপিএল। প্রতিবছরই বিপিএল শুরু …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: